প্রোগ্রামিং –এ প্রথম অনুরণন

11
Author: অধ্যাপক ড. সৈয়দ আখতার হোসেন
বিভাগীয় প্রধান, কম্পিউটার সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ
ড্যাফোডিল ইন্টারেনেশনাল ইউনিভার্সিটি,
ধানমন্ডি, ঢাকা।

স্বভাবতই বিধাতা মানবসৃষ্টতে রেখেছেন সুমহান নিপুণতা। ভূমিষ্ঠ শিশুর বেড়ে ওঠা থেকে মায়ের প্রতিটি শ্বাসপ্রশ্বাসে আপন সৃজনশীলতায় চারপাশের সবকিছু কথা বলতে শুরু করে। ক্রমান্বয়ে বেড়ে ওঠা শৈশবের মেধায় সঞ্চারিত হয় প্রকৃতি। তাই প্রোগ্রামিং এর বিষয়টা অনেকটা মজ্জাগত। লক্ষণীয় গাণিতিক সমস্যা সমাধানে শৈশবের সময়টাতে অর্জন উল্লেখযোগ্য। শৈশবের এই সময়ে মনে থাকে না কোন সংশয়, দ্বিধা বা সংকোচ। বরঞ্চ অজানাকে জানার তীব্র আকাঙ্ক্ষা জেগে ওঠা অস্বাভাবিক নয়। মানব মনের রয়েছে অসাধারণ ক্ষমতা। প্রোগ্রামিং বা কম্পিউটারকে সফল ভাবে ব্যবহার করে কোন সমস্যার সমাধানে পৌঁছানো একটি সাধারণ অবস্থার বহিঃপ্রকাশ মাত্র। যে কোন সমস্যা হৃদয়ের গভীরে নিয়ে যদি মনকে সংবেদনশীল ভাবনায় ধাপে ধাপে অনুভব করা যায়, সমস্যা যতই কঠিন হউক না কেন, সমাধানের রূপরেখা আজান্তেই দিগন্তে পাখা মেলে।

মনেপরে প্রথম প্রোগ্রামিং শেখার শিহরণ। আজও সেই শিহরণ একই উন্মাদনায় হৃদয়ে দোলা দেয়। ১৯৮৮ সালের এক বিকালে আমাদের বিভাগের শিক্ষক সবে ফিরেছেন উচ্চতর গবেষণা শেষে বিলেত থেকে। শখ করে এনেছেন ৩ ১/২ ইঞ্চি ফ্লপি ডিস্কে একটি বিশেষ সফটওয়্যার, প্রাণপ্রিয় শিক্ষকের জন্য। আমরা ২/৩ জন জেনে ফেললাম বিষয়টা। সময়মত বিভাগের শিক্ষকের রুমে চলে গেলাম, পিসিতে সফটওয়্যার দেখতে। আমাদের আগ্রহ দেখে বারণ সইলো না। দাড়িয়ে আছি তিনজনে, চেয়ারের পিছনে। বিলেত ফেরত শিক্ষক ফ্লপি ডিস্কটা মেশিনে ঢুকিয়ে কি যেন কমান্ড প্রম্পটে লিখলেন, সাথে সাথে একটি বিস্ময়কর চিত্র ফুটে উঠল মনিটর স্ক্রিনে। সেখানে ইলেকট্রনিক সার্কিট বানানোর সব চিহ্ন রয়েছে। একটা সার্কিট বানানো হল এবং সেটাকে যেন বিদ্যুৎ সরবরাহ করে চালানো হল। সাথে সাথে সার্কিটের প্রকৃতি অনুযায়ী একটা চিত্র তৈর হল। আমরা একদম হারিয়ে গেছি বিস্ময়ে, কি দেখছি! এও সম্ভব!। ১৯৮৮ সালের এই বিকালে কি যেন করে গেল, হৃদয়ের অভ্যন্তরে। Read More »

Advertisements

আয়োজিত হয়ে গেলো সফটওয়্যার টেস্টিং বিষয়ক সেমিনার “Software Testing as Career Path”

imgonline-com-ua-resize-0ztuftg3htw.jpg
Author: Sadia Afrin Suma
Batch 47, CSE DIU
Executive: CPC Press, ACM Wing, and Career Wing.

১ আগস্ট,২০১৮তারিখে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ক্লাব (সিপিসি) “ Software Testing as a Career Path” শিরোনামে সেমিনার আয়োজন করে।

সেমিনারটিতে বিখ্যাত সফটওয়্যার কোম্পানি CodeMarshal এর লিড সফটওয়্যার টেস্টিং ইঞ্জিনিয়ার তাসিন নেওয়াজ দ্বারা পরিচালিত হয়।

এই সেমিনারটিতে তাসিন নেওয়াজ, Quality Assurance(QA) কী? সফটওয়্যার টেস্টিং কী? কেন আপনি  QA ইঞ্জিনিয়ার হবেন? QA ইঞ্জিনিয়ার হতে কি কি দক্ষতার প্রয়োজন? চাকরি ক্ষেত্রে QA ইঞ্জিনিয়ারের চাহিদা কেমন? ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

IMG_20180801_145538.jpg

তার বক্তব্য থেকে Software Quality Assurance সম্পর্কে জানা যায়। কেন একটি সফটওয়্যার  এর কোয়ালিটি যাচাই করা প্রয়োজন হয়? যখন একটি সফটওয়্যার তৈরি করা হয় অবশ্যই বাজারে সেটির প্রতিদ্বন্দ্বী থাকবে। এখন কিভাবে প্রমাণ করবেন আপনার সফটওয়্যারটি অন্য সফটওয়্যার থেকে ভালো সেবা প্রদান করবে? বা আপনি আপনার সফটওয়্যার দিয়ে যে সেবা প্রদান করতে চাচ্ছেন তা আপনার তৈরি করা সফটওয়্যার দ্বারা প্রদান করা সম্ভব হবে কি না? এই বিষয়গুলো সঠিকভাবে জানার জন্য কোয়ালিটি যাচাই করা প্রয়োজন। আপনি যদি সফটওয়্যার তৈরির পর কোয়ালিটি যাচাই না করেই সেটিকে বাজারে ছাড়েন এবং সেটি যদি আপনার লক্ষ্য পূর্ণ না করে তাহলে আপনি অনেক বড় ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন।Read More »

সতর্কিকরণ!!! কন্টেস্ট চলাকালিন সময় পালনীয় কিছু পদ্ধতি!

Screenshot (83).png
Author: সাদিয়া সুলতানা কুমু
45th Batch, CSE

আজ আমি এখানে আমার নিজের অভিজ্ঞতা থেকে কিছু টিপস শেয়ার করতে চাই।

১। প্রব্লেম টি মনোযোগ দিয়ে পড়া , প্রব্লেম এ কিছু কিছু লাইন হাইলাইট করে ফেলো, তা ভালভাবে পড়া। সম্পূর্ণ প্রব্লেম তো আগে পড়তেই হবে,তারপর তোমার হাইলাইট করা অংশ গুলো হয়ত লুকিয়ে থাকতে  পারে । আর প্রব্লেমে অতিরক্ত অনেক কথাই লিখা থাকে। যদি মনযোগ দিয়ে হাইলাট করো তাহলে আর বার বার অপ্রয়োজনীয় তথ্য পড়া লাগছে না।

২। স্ট্যান্ডিং দেখে যে প্রব্লেম টি বেশি সলভ হয়েছে তাতে ফোকাস দেয়া । অর্থাৎ যেটি তুলনামূলক  সহজ প্রব্লেম , সেটিই তো সবাই আগে সলভ করে ফেলে,তাই না ? তাই স্ট্যান্ডিং দেখে সেটা সহজেই খুঁজে পেতে পারো।

৩। যেহেতু কন্টেস্ট টাইমে খাতা কলম সাথে রাখা যায় , তাই উচিত হবে মাথায় প্রব্লেম সমাধান হওয়া মাত্রই তা খাতায় রাফ আকারে লিখে ফেলা , এতে কোড টাইপ করতে সুবিধা হবে।

৪। প্রব্লেম এর নিচে অনেক সময় নির্দিষ্ট কন্সটেন্ট মান দেয়া থাকে , তখন ঐ প্রব্লেমটি সলভ এর জন্য সম্পূর্ণ মানটি বা ঐ মানটি-ই ব্যবহার করতে হবে। যেমন পাই এর মান ৩.১৪১৬ দিলে সেটিই ব্যবহার করতে হবে, তুমি দশমিকের পর বেশী কম নিয়ে কাজ করলে হবে না।

৫।টাইপিং স্পিড এর দিকে খেয়াল রাখতে হবে। অনেক সময় টাইপিং স্পিড স্লো হওয়ার কারণে কোড টাইপ করে সাবমিট করতে অনেক টাইম লেগে যায় তখন র‍্যাংকিং পিছিয়ে যায় অথচ প্রব্লেমটির সমাধান হয়ত মাথায় অনেক আগেই হয়ে গিয়েছিল।Read More »

Stopper was stopped! Take-Off Programming Contest Summer-2018

press-3-e1532102279608.jpg
Author: Md. Hafizur Rahman Arfin
Press Secretary, DIU CPC
Batch: 43, CSE, DIU

Daffodil International University  Computer and Programming Club (DIU CPC) is organizing Take-off Programming Contest in every semester to create the best and skilled artisans in the field of programming for the last two years. For the past two years, this event has been organized 8 times! This program is only for the 1st and 2nd semester students.

IMG_2804.JPG
Contestants are busy with solving the problems at 8th Take-Off Programming Contest on 27th July, 2018

It is essential for the new students of the university to get the right idea of ​​programming at the very beginning of their university life. And to get inspired, motivated and encouraged to think about their future. Like every time, the DIU CPC has successfully hosted the 8th  Take-Off Programming Contest in 27th July, 2018. These types of encouraging programming events helped Daffodil International University to differentiate itself from other universities. This event was a great opportunity for students to acquire knowledge about programming as well as to meet senior programmers and programming enthusiast teachersRead More »

ফিরে দেখা স্প্রিং-২০১৮

১।Training Program: Advance Programming Course Spring 2018

গত ১২ জানুয়ারি DIU-CPC একটি ট্রেনিং প্রোগ্রাম এর আয়োজন করে । এই কোর্স এর লক্ষ্য ছিলো ছাত্রছাত্রীদের প্রোগ্রামিং সম্পর্কে প্রাথমিক ধারনা দেয়া এবং এই প্রাথমিক ধারনা নিয়ে যাতে সামনে প্রোগ্রামিং এবং এই প্রোগ্রামিং এর সমস্যার সমাধান করে পরবর্তী ধাপে যেতে পারে সেটি নিশ্চিত করা । এই কোর্সটির সার্বিক দ্বায়িত্বে ছিলেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সিএসই ডিপার্টমেন্টের অধ্যাপক মোহাম্মোদ মাহমুদুর রহমান(সিইও, মুক্তসফট,  । কোর্সটির ক্লাস এর সময় ছিল ৩ ঘন্টা এবং টেক-অফ কন্টেস্ট ফল’১৭ এর সেরা ৪০ জনকে নির্বাচন করা হয়েছিল মৌখিক ভর্তির জন্য এবং সেখান থেকে বাছাইকৃত ছাত্রছাত্রীরা সুযোগ পেয়েছিল কোর্সটি করার এবং এই কোর্সটি ছিলো সম্পূর্ন বিনামূল্যে।

 

 

২/Trainning Programe: প্রজেক্ট “C খুন” SENIORS!!!

DIU CPC প্রত্যেক সেমিস্টার এ ট্রেনিং প্রোগ্রাম “C খুন” SENIORS!!!” পরিচালনা করে আসছে।শুধুমাত্র ৩য় সেমিস্টার এবং তদুর্ধ শিক্ষার্থীদের জন্য এই আয়োজন।এই প্রজেক্ট এর লক্ষ্য হচ্ছে ভার্সিটির স্টুডেন্টদের সি প্রোগ্রামিং সম্পর্কে একটি স্বচ্ছ ধারণা দেয়া।

 

 

 

৩/Training Program: Training on গ্রাফিক্স ডিজাইন(UI/UX) !! পিএইচপি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট

DIU CPC থেকে চারমাস ব্যাপি গ্রাফিক্স ডিজাইন(UI/UX) ও পিএইচপি এর মাধ্যমে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর উপরে প্রশিক্ষন শুরু হয়েছে । ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির যেকোন স্টুডেন্ট চাইলে এই কোর্সে অংশগ্রহন করতে পারে । পিএইচপির কোর্স রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে মিনিমাম ৩য় সেমিস্টার এর স্টুডেন্টরা ।
কোর্সগুলিতে কোন রেজিস্ট্রেশন ফী নেই তবে পার  কোর্স ২০০০ টাকা জামানত হিসেবে রাখতে হবে ( অযাচিত রেজিস্ট্রেশন ঠেকানোর জন্য ) যেটা উপস্থিতির উপরে ভিত্তি করে কোর্স শেষে ফেরত দেয়া হবে । কেউ ১০০% উপস্থিত থাকলে তিনি পুরোটাই ফেরত পাবেন । ৮০% এর কম অনুপস্থিতি থাকলে টাকা অফেরতযোগ্য । ৮০% এর বেশী উপস্থিত থাকলে তত % টাকা ফেরত দেয়া হবে। তার মানে ১০০% উপস্থিত থাকলে ২০০০ টাকাই ফেরত দেয়া হবে।Read More »

বিচারকের রায়! অনলানাইন জাজ ভার্ডিক্টগুলো, কোনটা কেনো? চলো একটু জেনে নেই।

press-3-e1532102279608.jpg
Author: মোঃ হাফিজুর রহমান আরফিন
Press Secretary, DIU CPC
Batch: 43, CSE, DIU

“10% রং এনসার!”
“রানটাইম কেন ভাইইই?“
“দোস্ত, TLE খাইছি, কেম্নে কী বুঝি না!”
“AC দাও বিধাতা, নয়তো এ জীবন রাখবোনা!”

তুমি যদি উপরের কথাগুলো কোথাও শুনে থাকো এবং ভেবে থাকো যে প্রোগ্রামাররা হিব্রু ভাষায় কথা বলে। তাহলে আশা করি এই লেখাটা পড়ার পর তোমার ভুল ভাঙ্গবে। অথবা তুমিও হিব্রু ভাষায় কথা বলতে পারবে!

প্রোগ্রামিং করা হয় কোনো একটা সমস্যা সমাধানের জন্য। সেটা হোক কোনো অনলাইনে জাজে ছোট্ট একটা প্রবলেম বা বিশাল ফ্লাইওভারের যাতায়াত ম্যানেজ করা জন্য তৈরি সফটওয়্যার। সব কিছুর মূলেই রয়েছে সমস্যা আর তার সমাধানের জন্য প্রোগ্রামিং।

এই সমস্যা সমাধানের দক্ষতা গড়ার জন্য চিন্তা করা শিখতে হয়, আর তার জন্য বেশী বেশী প্রবলেম সলভ করতে হয়। ”Online Judge” সংক্ষেপে OJ হলো সেই রকমই এক-একটি প্রব্লেমের ভান্ডার। । যেখানে হাজার হাজার প্রবলেম দেয়া আছে, সেগুলো তুমি প্রোগ্রামিং এর মাধ্যমে সমাধান করে জমা দিবে। তোমার কোড চেক করে সমাধান সঠিক হয়েছে কি না তার উপর ভিত্তি করে OJ তোমাকে একটি রেজাল্ট দিবে। তুমি ভাবতে পারো তোমার করা কোড একটি আসামি। সেই কোড টি কে — OJ কাঠগড়ায় দাড় করাবে। খুবই কঠিন পদ্ধতিতে তার বিচার হবে। এবং শেষ মুহুর্তে OJ একটি রায় দিবে।

1.jpeg

Read More »